গভীর শোকাহত,

Khaled Al Mahmud

সুপার ব্লগার
#1
“সব কটা জানালা খুলে দাও না”, “ও মাঝি নাও ছাইড়া দে ও মাঝি পাল উড়াইয়া দে”, “সুন্দর সুবর্ণ তারুণ্য লাবণ্য”, “মাগো আর তোমাকে ঘুমপাড়ানী মাসী হতে দেব না”, “একাত্তরের মা জননী কোথায় তোমার মুক্তিসেনার দল”..
fb_img_1548178331710-jpg.153



.. ... ... এর মতো দেশাত্মবোধক গানগুলোর সুরে সাথে সাথে যাঁর সুন্দর মুখটি বার বার উজ্জ্বলভাবে ভেসে ওঠে সেই প্রিয় গীতিকার, সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক মুক্তিযোদ্ধা আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল আর নেই।

ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজীউন । মহান আল্লাহতায়ালা তাঁর প্রতি রহম করুন, মার্জনা করুন, কবুল করুন ।

খুবই বেদনার খবর । আমার অন্যতম প্রিয় মানুষ তিনি.... । এত দ্রুত চলে গেলেন...।

১৯৫৬ সালের ১ জানুয়ারি জন্ম নেওয়া আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল একাত্তরে মাত্র ১৫ বছর বয়সে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ নেন । তখন তিনি ছিলেন ঢাকার আজীমপুরের ওয়েষ্টটেণ্ট হাইস্কুলের ছাত্র। এরপর তাঁর বর্ণাঢ্য জীবন বয়ে গেছে বহু বহু ঘটনায়।

#আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে মওদুদি জামাতিদের সাবেক আমীর গোলাম আযমের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ মামলায় সাক্ষ্য দেন এবং ওইসময় তিনি ১৯৭১ সালের ঘটনাপ্রবাহ তুলে ধরেছিলেন। ২০১২ সালের অগাস্টে তিনি ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য দেওয়ার পরের বছর খুন হন তার ছোট ভাই আহমেদ মিরাজ। জামাত-শিবির তথা যুদ্ধাপরাধী গোষ্ঠী এই হত্যাকাণ্ড ঘটায় বলে আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল ও তাঁর স্বজন-বন্ধুবান্ধব এবং এলাকাবাসীর দাবী। ২০১৩ সালের ৯ মার্চ রাতে কুড়িল ফ্লাইওভারের পাশ থেকে পুলিশ মিরাজের লাশ উদ্ধার করে। সেই ঘটনার বিচার না পাওয়ায় চরম হতাশা ছিল বুলবুলের মনে।

#বর্বর রাজাকারদের গুরু গোলাম আজমের বিরুদ্ধে স্বাক্ষী দেওয়ার কারণে শুধু তাঁর ভাইকে হারাতে হয় এমন নয়, নিরাপত্তার বেড়াজালে তিনিও একপ্রকার বন্দী হয়ে পড়েন। এই বন্দীত্ব ও ছোটভাইয়ে রাজাকার পক্ষের বর্বরদের দ্বারা হত্যা হওয়া তাঁকে হতাশ করে ফেলে এবং ক্রমেই অসুস্থ হতে থাকেন। একাধিক সাক্ষাৎকারে ও ভিডিওতে যা তিনি জানিয়েছেন।

#আফসোস আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল তাঁর ভাইয়ের বিচার দেখে যেতে পারলেন না। আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল ভাইয়ের অনুজ হত্যার বিচার চাই, অপরাধী জামাত-শিবিরের বর্বরদের মৃত্যুদণ্ড চাই।
 
Last edited by a moderator:

বর্ণমালা এন্ড্রয়েড এপ

ফেসবুকে বর্ণমালা ব্লগ

নতুন যুক্ত হয়েছেন

Top