নীরব ভালবাসা (২য় পর্ব)।।তাসনীম

#1
images-20-jpeg.292

সকালে ইরা ছাদে বসে বসে আলপনা দিচ্ছে এমন সময় রাহাত ছাদে গিয়ে ইরার পিছনে গিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে,আর মনে মনে বলে মেয়েটা পিচ্চি হলে কি হবে অনেক সুন্দর করে আলপনা করতে পারে।ইরা পিছনে রাহাত আছে বুঝতে পেরে বলে উঠে....।

নিরব ভালোবাসা (১ম পর্ব) পড়তে ক্লিক করুন

আচ্ছা আপু আমি কি তোমাদের শহরের মানুষদের মত করে দিচ্ছি নাকি গ্রামের গ্যাইয়া খ্যাত এসবের মত করে দিচ্ছি,সিমু তুকে কেউ গ্যাইয়া বললে হল নাকি তুই তো অনেক সুন্দর করে দিচ্ছিস তুকে যে গ্যাইয়া বলছেনা সে নিজে একটা গ্যাইয়া ভূত রাহাত কে রাগানোর জন্য দুষ্টমি করে বলল।ইরা না আপু আমি তো গ্রামের মানুষ শহরের কিছুই জানিনা তাই আর কি ভেঞ্চি কেটে কথা টা বলল।রাহাত তো রেগে আগুন এই মেয়ে তোমার সমস্যা কি এইভাবে টেস দিয়ে কথা বল কেন,ইরা আচ্ছা মানুষ তো আপনি আমি তো আপুকে কথাটা বললাম আপনি কেন তৈলে বেগুনে জ্বলতেছেন,ওহ বুঝেছি কাইকে কিছু বললে শহরের মানুষরা এইভাবে রেগে যাই তাই না আপু সিমুর দিকে ফিরে কথাটা বলল,রাহাত আরো বেশি রেগে যাই কথাটা শুনে,রাহাত আছতে আছতে ইরার দিকে এগিয়ে যাই ইরা পিছনে যেতে তাকে আর বলতে থাকে আপু আমাকে বাচাও না হই আমাকে কুমির টা খেয়ে পেলবে প্লিজ আপু আমাকে বাঁচাও,সিমু আমি নেই আমি গেলাম বলে সিমু এক ধুর দিয়ে চলে যাই,ইরা প্লিজ সামনে আসিয়েন্না বলে চিৎকার করতে তাকে কে শুনে কার কথা ইরা তো দেওয়ালের সাথে লেগে যাই,রাহাত দেওয়ালে হাত দিয়ে ইরাকে চেপে ধরে বলে তোমার সাহস কি করে হই আমাকে টেস দিয়ে কথা বলার,ইরা ভয়ে চোখ বন্দ করে আমতা আমতা করে বলে আমি কখন টেস দিয়ে কথা বললাম আপনাকে কথাটা শেষ করার আগে রাহাত ইরার ঠোঁট দুটি নিজের মাঝে নিয়ে নেই...।

সিমু ইরা বেচারি তো আজকে শেষ হয়ে যাবে দেখি বেচারি আছে কিনা বলে ছাদের দিখে পা বাড়াই ছাদে গিয়ে যা দেখে......।
,
,
,
,
,
,
,
,
চলবে.....
নিরব ভালোবাসা (১ম পর্ব) পড়তে ক্লিক করুন
 
Last edited:

Sps Shuvo

এক্টিভ ব্লগার
#2
ভালো লাগল
 

বর্ণমালা এন্ড্রয়েড এপ

ফেসবুকে বর্ণমালা ব্লগ

নতুন যুক্ত হয়েছেন

Top