• সুখবর........ সুখবর........ সুখবর........ বর্ণমালাকে খুব শিঘ্রই পাওয়া যাবে বাংলা বর্ণমালার ডোমেইন "ডট বাংলায়" অর্থাৎ আমাদের ওয়েব এড্রেস হবে 'বর্ণমালাব্লগ.বাংলা' পাশাপাশি বর্তমান Bornomalablog.com এ ঠিকানায়ও পাওয়া যাবে। বাংলা বর্ণমালায় পূর্ণতা পাবে আমাদের বর্ণমালা।

বি তে বিবাহ বিভ্রাট

এম আই সৌরভ

নতুন সদস্য
#1
20190305_094814-jpg.302
পকেটে একটি টাকাও নেই।
আমি বসে আছি একটা রেস্টুরেন্ট এ। এখানে ফ্রি ওয়াইফাই পাওয়া যায়। ওয়েটারগুলো চার পাঁচ বার এসে ঘুরে গেছে। ঘড়ির দিকে তাকালাম। ২৭ মিনিট চলে গেছে। এখন এই মুহুর্তে না খেয়ে উঠে গেলে ব্যাপারটা কেমন দেখাবে।
একটি মেয়ে রেস্টুরেন্ট এ ঢুকলো। বয়স আনুমানিক ২২,লম্বা, ফর্সা। চুলের রঙ কালো। ঠোঁটে হালকা লিপিস্টিক, চোখে কাজল। চোখের কাজলে তাকাতেই মেয়েটির চোখে চোখ পরলো। মুখে কিছু বলছে না। তবে চোখের ভাষা স্পষ্ট। মনে হচ্ছে আমাকে প্রশ্ন করছে "আমি যাকে ভাবছি সে কি আপনি"। আমি এমন ভাবে হাসলাম জেনো উত্তরটা হ্যা সুচক মনে হয়।
-হাই, আপনি কি রাব্বি?
-জ্বি মধুমায়া।
-হ্যালো আমি মধুমায়া নই। আমি হলাম ইপ্সিতা।
-আপনাকে দেখে মধুমায়া মধুমায়া মনে হচ্ছে। আজ থেকে মধুমায়া বলে ডাকবো।
-আজ থেকে ডাকবেন মানে? আমি আপনাকে বিয়ে করবো না বলার জন্যে ডাকছি। ফেইসবুকেই বলে দিতাম। কিন্তু সামনাসামনি বলার ইচ্ছে হলো তাই ডাকছি।
-ওহ আচ্ছা।
[কি বলবো বুঝতে পারছি না। ওয়েটারগুলো আমাকে দেখছে। মেয়েদের সাথে বসে থাকার মধ্যে একটা প্রেস্টিজ আছে। একা অপমানিত হতে সমস্যা নাই। মেয়ে থাকলেই সমস্যা।]
-কখন আসছেন?
-এই আধাঘণ্টা হলো। অনেক্ষন ধরে বসে আছি।
-এতোক্ষন ধরে বসে আছেন, কিন্তু কোনো কিছু অর্ডার করেননি কেনো?
-আপনি কাল রাতে ডাকার পর থেকে ঘুম আসছে না। সকালে উঠে তাড়াহুড়ো করে বের হয়ে আসছি। তাড়াহুড়োতে মানিব্যাগ আনি নি।
-এই যে হেলো, আপনার মাথা কি ঠিক আছে? আমি আজ সকালে ডাকছি। আপনি বললেন অফিস আছে আসতে পারবেন না। তবে আমি জানতাম আপনি আসবেন।
-হয়েছে কি, আপনি ডাকার পর ঘুমিয়ে পড়েছি। কতক্ষণ ঘুমিয়েছি জানি না। কখনো কিছুক্ষণ ঘুমিয়ে মনে হয় অনেকক্ষণ ঘুমিয়েছি। কখনো এর উল্টো।
-থাক সে সব কথা। আগে অর্ডার দিন।
[ওয়েটার আসলো, আমি কিছু বলার আগেই তিনি অর্ডার দিলেন। ওয়েটার আমার দিকে তাকালো। আমি স্বাভাবিক ভঙ্গীতে হাসলাম। ওয়েটার চলে গেলো। আমরা দুজনেই চুপ। ওয়েটার খাবার দিয়ে যাওয়ার পর মেয়েটি আবার বলতে শুরু করলো।]
-আচ্ছা যা বলছিলাম, বিয়ের দিন আপনারা যখন আসবেন ঠিক এই রকম সময়ে আমাদের বাসায় কাউকে দিয়ে ফোন করিয়ে বলবেন আপনি বিয়েতে রাজি না। আপনি এই বিয়ে করবেন না।
-এর আগে ফোন করলে হবে না?
-না, এর আগে ফোন করলে আপনাদের অনেক কথা শুনতে হবে। ইনভেস্টিগেশন হবে। বিয়ে না করার কারণ জানতে চাইবে। লম্বা প্রসেস। বিয়ের আগে আগে বললে এই সমস্যাগুলো হবে না।
-কিন্তু মনে করুন আমি আপনাকে বিয়ে করতে চাই। এবং কিছু না বলেই বিয়ে করতে চলে যাই তাহলে কি করবেন?
-আমাকে বোকা ভাববেন না। আমি যথেষ্ট বুদ্ধিমতী। আমার কাছে প্লান বি আছে। বিয়ের আগে সুমনের সাথে পালিয়ে যাবো। অথবা বিয়ে পর। এতে আপনারা মানসম্মানে পরে যাবেন। তাই ভালোই ভালোই যা বলছি তাই করেন।
[মেয়েটা অসম্ভব বুদ্ধিমতী ও সুন্দরি। এমন মেয়েকে বিয়ে না করার কোনো কারণ নেই। তবে আমার মতে, বুদ্ধিমতী সুন্দরী মেয়েদের বিয়ে করতে নেই। এরা সবসময় স্বামীর উপর হুকুম চালায়। বিয়ের জন্যে বোকা সুন্দরী মেয়েরাই উত্তম। মেয়েটার দিকে চোখ পরতেই মেয়েটি আবার বলতে শুরু করলো। ]
-দেখুন বেশি ভাববেন না। আমি সব প্লান করে রেখেছি। যা হবে সব প্লানের মধ্যে।
-আচ্ছা মধুমায়া, মনে করুন আপনার প্লান মত সব হলো না। আমি বিয়ে করতে গেলাম না আবার আপনার প্রেমিক সুমনও এলো না। বিষয়টা কেমন হয়ে যাবে না। তার থেকে বরং হাতে দুইটা অপশনই রাখুন। বিয়ের সময় যে অপশনটা ভালো লাগবে সেই অপশনে টিক মার্ক দিয়ে দিলেন।
-দেখুন প্রথমত আমি মধুমায়া নই আর দ্বিতীয়ত আমাকে জ্ঞ্যান দিবেন না। আমি যথেষ্ট বুদ্ধিমতী। আর হ্যা, আপনার সাথে আর কথা বলার সময় নেই। যা যা বলছি তাই তাই করলে আপনার ই মঙ্গল।
আর কিছু বলতে পারলাম না। কিছু বলার আগেই ওয়েটারকে ডাক দিলো। ওয়েটার এলো। বিল হয়েছে ৪৬০ টাকা। টাকা নেই জেনেও পিছন পকেটে হাত দিলাম। মেয়েটি পাঁচশ টাকার নোট বের করে আমার সামনে রেখে বললো "আপনি মানিব্যাগ আনেন নি"।
ওয়েটারকে ৫০০টাকার নোটটা দিলাম। খুব অনিচ্ছায় ওয়েটার ৪০টাকাটা বের করলো। আমি ৪০টাকাটা নিয়ে ২০ টাকা টিপস দিলাম। মেয়েটি শুধু বুদ্ধিমতী আর সুন্দরী নয়। স্মৃতিশক্তিও প্রখর।
মেয়েটার সাথে আর কোনো কথা হলো না। একটা রিক্সায় করে চলে যাওয়ার পর মনে হলো আমি রাব্বি নই। বিরাট ভুল হয়ে গেছে। রাব্বির নাম্বারটা পেলে ভালো হতো। ফোন করে বলতাম, আপনার বিয়ের দিন কপাল পুড়বে।
বাকি বিশ টাকা দিয়ে একটা সিগারেট কিনলাম। হাটতে হাটতে ভাবছি বিয়ের দিন কি হবে। বর সেজে রাব্বি উপস্থিত কিন্তু মেয়েটি বুঝবেই না এ রাব্বি। আমাকে খুজবে। সবাই বলবে এ রাব্বি,মেয়েটি শুধু বলবে এ রাব্বি নয়। একটা বিরাট গণ্ডগোল ব্যাপার।
@এম আই সৌরভ
 

Khaled Al Mahmud

সুপার ব্লগার
#3
পকেটে একটি টাকাও নেই।
আমি বসে আছি একটা রেস্টুরেন্ট এ। এখানে ফ্রি ওয়াইফাই পাওয়া যায়। ওয়েটারগুলো চার পাঁচ বার এসে ঘুরে গেছে। ঘড়ির দিকে তাকালাম। ২৭ মিনিট চলে গেছে। এখন এই মুহুর্তে না খেয়ে উঠে গেলে ব্যাপারটা কেমন দেখাবে।
একটি মেয়ে রেস্টুরেন্ট এ ঢুকলো। বয়স আনুমানিক ২২,লম্বা, ফর্সা। চুলের রঙ কালো। ঠোঁটে হালকা লিপিস্টিক, চোখে কাজল। চোখের কাজলে তাকাতেই মেয়েটির চোখে চোখ পরলো। মুখে কিছু বলছে না। তবে চোখের ভাষা স্পষ্ট। মনে হচ্ছে আমাকে প্রশ্ন করছে "আমি যাকে ভাবছি সে কি আপনি"। আমি এমন ভাবে হাসলাম জেনো উত্তরটা হ্যা সুচক মনে হয়।
-হাই, আপনি কি রাব্বি?
-জ্বি মধুমায়া।
-হ্যালো আমি মধুমায়া নই। আমি হলাম ইপ্সিতা।
-আপনাকে দেখে মধুমায়া মধুমায়া মনে হচ্ছে। আজ থেকে মধুমায়া বলে ডাকবো।
-আজ থেকে ডাকবেন মানে? আমি আপনাকে বিয়ে করবো না বলার জন্যে ডাকছি। ফেইসবুকেই বলে দিতাম। কিন্তু সামনাসামনি বলার ইচ্ছে হলো তাই ডাকছি।
-ওহ আচ্ছা।
[কি বলবো বুঝতে পারছি না। ওয়েটারগুলো আমাকে দেখছে। মেয়েদের সাথে বসে থাকার মধ্যে একটা প্রেস্টিজ আছে। একা অপমানিত হতে সমস্যা নাই। মেয়ে থাকলেই সমস্যা।]
-কখন আসছেন?
-এই আধাঘণ্টা হলো। অনেক্ষন ধরে বসে আছি।
-এতোক্ষন ধরে বসে আছেন, কিন্তু কোনো কিছু অর্ডার করেননি কেনো?
-আপনি কাল রাতে ডাকার পর থেকে ঘুম আসছে না। সকালে উঠে তাড়াহুড়ো করে বের হয়ে আসছি। তাড়াহুড়োতে মানিব্যাগ আনি নি।
-এই যে হেলো, আপনার মাথা কি ঠিক আছে? আমি আজ সকালে ডাকছি। আপনি বললেন অফিস আছে আসতে পারবেন না। তবে আমি জানতাম আপনি আসবেন।
-হয়েছে কি, আপনি ডাকার পর ঘুমিয়ে পড়েছি। কতক্ষণ ঘুমিয়েছি জানি না। কখনো কিছুক্ষণ ঘুমিয়ে মনে হয় অনেকক্ষণ ঘুমিয়েছি। কখনো এর উল্টো।
-থাক সে সব কথা। আগে অর্ডার দিন।
[ওয়েটার আসলো, আমি কিছু বলার আগেই তিনি অর্ডার দিলেন। ওয়েটার আমার দিকে তাকালো। আমি স্বাভাবিক ভঙ্গীতে হাসলাম। ওয়েটার চলে গেলো। আমরা দুজনেই চুপ। ওয়েটার খাবার দিয়ে যাওয়ার পর মেয়েটি আবার বলতে শুরু করলো।]
-আচ্ছা যা বলছিলাম, বিয়ের দিন আপনারা যখন আসবেন ঠিক এই রকম সময়ে আমাদের বাসায় কাউকে দিয়ে ফোন করিয়ে বলবেন আপনি বিয়েতে রাজি না। আপনি এই বিয়ে করবেন না।
-এর আগে ফোন করলে হবে না?
-না, এর আগে ফোন করলে আপনাদের অনেক কথা শুনতে হবে। ইনভেস্টিগেশন হবে। বিয়ে না করার কারণ জানতে চাইবে। লম্বা প্রসেস। বিয়ের আগে আগে বললে এই সমস্যাগুলো হবে না।
-কিন্তু মনে করুন আমি আপনাকে বিয়ে করতে চাই। এবং কিছু না বলেই বিয়ে করতে চলে যাই তাহলে কি করবেন?
-আমাকে বোকা ভাববেন না। আমি যথেষ্ট বুদ্ধিমতী। আমার কাছে প্লান বি আছে। বিয়ের আগে সুমনের সাথে পালিয়ে যাবো। অথবা বিয়ে পর। এতে আপনারা মানসম্মানে পরে যাবেন। তাই ভালোই ভালোই যা বলছি তাই করেন।
[মেয়েটা অসম্ভব বুদ্ধিমতী ও সুন্দরি। এমন মেয়েকে বিয়ে না করার কোনো কারণ নেই। তবে আমার মতে, বুদ্ধিমতী সুন্দরী মেয়েদের বিয়ে করতে নেই। এরা সবসময় স্বামীর উপর হুকুম চালায়। বিয়ের জন্যে বোকা সুন্দরী মেয়েরাই উত্তম। মেয়েটার দিকে চোখ পরতেই মেয়েটি আবার বলতে শুরু করলো। ]
-দেখুন বেশি ভাববেন না। আমি সব প্লান করে রেখেছি। যা হবে সব প্লানের মধ্যে।
-আচ্ছা মধুমায়া, মনে করুন আপনার প্লান মত সব হলো না। আমি বিয়ে করতে গেলাম না আবার আপনার প্রেমিক সুমনও এলো না। বিষয়টা কেমন হয়ে যাবে না। তার থেকে বরং হাতে দুইটা অপশনই রাখুন। বিয়ের সময় যে অপশনটা ভালো লাগবে সেই অপশনে টিক মার্ক দিয়ে দিলেন।
-দেখুন প্রথমত আমি মধুমায়া নই আর দ্বিতীয়ত আমাকে জ্ঞ্যান দিবেন না। আমি যথেষ্ট বুদ্ধিমতী। আর হ্যা, আপনার সাথে আর কথা বলার সময় নেই। যা যা বলছি তাই তাই করলে আপনার ই মঙ্গল।
আর কিছু বলতে পারলাম না। কিছু বলার আগেই ওয়েটারকে ডাক দিলো। ওয়েটার এলো। বিল হয়েছে ৪৬০ টাকা। টাকা নেই জেনেও পিছন পকেটে হাত দিলাম। মেয়েটি পাঁচশ টাকার নোট বের করে আমার সামনে রেখে বললো "আপনি মানিব্যাগ আনেন নি"।
ওয়েটারকে ৫০০টাকার নোটটা দিলাম। খুব অনিচ্ছায় ওয়েটার ৪০টাকাটা বের করলো। আমি ৪০টাকাটা নিয়ে ২০ টাকা টিপস দিলাম। মেয়েটি শুধু বুদ্ধিমতী আর সুন্দরী নয়। স্মৃতিশক্তিও প্রখর।
মেয়েটার সাথে আর কোনো কথা হলো না। একটা রিক্সায় করে চলে যাওয়ার পর মনে হলো আমি রাব্বি নই। বিরাট ভুল হয়ে গেছে। রাব্বির নাম্বারটা পেলে ভালো হতো। ফোন করে বলতাম, আপনার বিয়ের দিন কপাল পুড়বে।
বাকি বিশ টাকা দিয়ে একটা সিগারেট কিনলাম। হাটতে হাটতে ভাবছি বিয়ের দিন কি হবে। বর সেজে রাব্বি উপস্থিত কিন্তু মেয়েটি বুঝবেই না এ রাব্বি। আমাকে খুজবে। সবাই বলবে এ রাব্বি,মেয়েটি শুধু বলবে এ রাব্বি নয়। একটা বিরাট গণ্ডগোল ব্যাপার।
@এম আই সৌরভ
 

বর্ণমালা এন্ড্রয়েড এপ

নতুন যুক্ত হয়েছেন

Top