• সুখবর........ সুখবর........ সুখবর........ বর্ণমালাকে খুব শিঘ্রই পাওয়া যাবে বাংলা বর্ণমালার ডোমেইন "ডট বাংলায়" অর্থাৎ আমাদের ওয়েব এড্রেস হবে 'বর্ণমালাব্লগ.বাংলা' পাশাপাশি বর্তমান Bornomalablog.com এ ঠিকানায়ও পাওয়া যাবে। বাংলা বর্ণমালায় পূর্ণতা পাবে আমাদের বর্ণমালা।

মঙ্গল শোভাযাত্রা ও বাঙালীর নববর্ষ উদযাপন।। সাব্বীর আহমাদ

Sabbir Ahmad

এক্টিভ ব্লগার
#1
fb_img_1555071458057-jpg.317

প্রসঙ্গঃ ইউনেস্কো স্বীকৃত মঙ্গল শোভাযাত্রা ও বাঙালীর নববর্ষ উদযাপন
......... ........... ........ .........
প্রথম কথাঃ
ইউনেস্কো একটি আন্তর্জাতিক সংস্থা।
আমার বাংলাদেশ একটি স্বাধীন সার্বভৌম দেশ।
কথা হচ্ছে ইউনেস্কো কোন দিবসকে স্বীকৃতি দিলে তা আমরা উদজাপন করব কি করবনা তা একান্তই আমাদের ব্যাপার। এখানে চাপিয়ে দেয়ার কোন অধিকার কারোর নেই। আর সুধু ইউনেস্কো নয় কোন সংস্থা তো দুরের কথা আমরা কোন দেশ বা জাতির এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে বাধ্য নই।
আর যদি বাধ্যই হই তাহলে বলবো আজ আমার দেশ স্বাধীন নয়।
আমার বাঙালী জাতি পরাধিনতার সৃঙ্খল মুক্ত নয়।
আজ ইউনেস্কো কর্তৃক স্বীকৃত হওয়ায় আমার দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলমানের উপর হিন্দুয়ানী সংস্কৃতি মঙ্গল শোভাযাত্রা চাপিয়ে দেয়া হবে তা কিছুতেই বাস্তবায়ন হতে পারেনা। এটা আমার সংস্কৃতি নয় এটা বাঙালীর বর্ষবরণ উৎসবের নামে কুকৌশলে হিন্দুয়ানী সংস্কৃতী ছড়িয়ে দেয়ার অপচেষ্টা।

দ্বিতীয় কথাঃ
একটি স্বাধীন দেশের নাগরিক তার স্বাধীনতার সুফল ভোগী হবে এটিই আমাদের কামনা।
হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খৃস্টান সহ সকল ধর্মাবলম্বী তার নিজ নিজ সংস্কৃতি চর্চা ও আচার অনুষ্ঠান করবে এটাই বাস্তবতা। তবে কেউ কারো সংস্কৃতি অন্যের উপর চাপিয়ে দিবে এটা মেনা নেয়া যায়না।
আমরা লক্ষ্য করেছি কয়েক বছর যাবৎ আমাদের দেশে হিন্দুয়ানী বিভিন্ন প্রথা-অনুষ্ঠান সরকারীভাবে আয়োজন ও বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।
প্রথমে সরকারি স্কুল - কলেজে এরপর এখন বাধ্য করা হচ্ছে মাদ্রাসা গুলোতেও।
এভাবে এক এক করে ঢুকে পরছে ভিনদেশী সংস্কৃতি। আমার দেশের পুরনো ইতিহাস ঐতিহ্য সংস্কৃতি বিলিন হয়ে যাচ্ছে আস্তে আস্তে। বর্তমানে প্রচলিত পহেলা বৈশাখে বর্ষবরণ উৎসবের নামে মঙ্গল শোভাযাত্রা আমাদের বাঙালীর উৎসব নয়। এসব পূর্বে আমার বাংলায় ছিলনা।

তাই সকলের প্রতি উদাত্ত আহবান জানাচ্ছি মঙ্গল শোভাযাত্রার নামে বিজাতীয় অনুষ্ঠান আয়োজন ও অংশগ্রহণ হতে বিরত থাকুন এবং নিজ নিজ জায়গা থেকে প্রতিবাদ করুন।

সাব্বীর আহমাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক
দৈনিক বরগুনা
 

বর্ণমালা এন্ড্রয়েড এপ

নতুন যুক্ত হয়েছেন

Top